20+ Romantic Bangla Kobita Collection

Here is the best 20+ Romantic Bangla Kobita Collection for boyfriend and girlfriend. Bengali people all over the world are looking Bangla kobita collection and sms over internet. For those, i have listed here most romantic Bangla premer choto kobita so that you can read and share with your boyfriend and girlfriend. In general, most of the people are searching over internet romantic bangla kobita rabindranath tagore. Specially, i have listed here rabindranath tagore premer kobita as well as onther bengali Bangla Kobita. I think all of you like our Bangla Kobita Collection.

Bangla Kobita Collection

By all means, Bangla Kobita is a great medium to express your felling and love to your lover. Nowadays, many boyfriend looks bangla kobita sms to send their girlfriend. You can use bangla kobita as Bangla love sms.  So, read and chose the best bangla romantic sms kobita from below and share with your loved ones.

তুই কি আমার দুঃখ হবি?

 এই আমি এক উড়নচন্ডী আউলা বাউল

 রুখো চুলে পথের ধুলো

 চোখের নীচে কালো ছায়া

 সেইখানে তুই রাত বিরেতে স্পর্শ দিবি

 তুই কি আমার দুঃখ হবি?

 

 তুই কি আমার শুষ্ক চোখে অশ্রু হবি?

 মধ্যরাতে বেজে ওঠা টেলিফোনের ধ্বনি হবি?

 তুই কি আমার খাঁ খাঁ দুপুর

 নির্জনতা ভেঙে দিয়ে

 ডাকপিয়নের নিষ্ঠ হাতে

 ক্রমাগত নড়তে থাকা দরজাময় কড়া হবি?

 একটি নীলাভ এনভেলাপে পুরে রাখা

 কেমন যেন বিষাদ হবি

 

  মেয়েটিকে

  যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখি

 সে দেবতার ছলে গড়া

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখিনা

 সে মার্ক্সের দ্য ক্যাপিটল দিয়ে গড়া

 দু’জনের মধ্যে মিল এসে গেলে

 চাঁদ-সুরুজ, যুক্তি-বুদ্ধি-মেধা

 চমক দিয়ে উঠে, গমক দেয়

 যে মেয়েটিকে আমি দেখতে পাই

 সে পার্ল এস বাকেরও মা হয়

 যে মেয়েটিকে আমি না দেখি

 সে মাক্সিম গোর্কিরও মা হয়

  সেই মেয়েটিকে আমি নারী সাহসিকা বলি

 সেই মেয়েটিকে আমি হৃদয়ে কোলাহল বলি

 এই মেয়েটির প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় সময় সময়

 পুঁজিবাদ দীর্ঘজীবী হবার কৌশল নিয়ে নিেেল

এই মেয়েটিরই আবার মুখ রক্তাভ হয়ে উঠে

 যখন সমাজ থেকে দূষিত রক্তরা ঝরে যায়

romantic bangla kobita collection

যে মেয়েটি আমার পুনর্বিন্যাস ঘটালো পরতে পরতে

 তার দুই রকম রূপ এসে মিলে আমার এক সাঁকোতে

 

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখি

 কথা বলতে গিয়ে হঠাৎই তার লাইন কেটে যায়

 ইথারের আজন্ম ঈর্ষায়, ঠিক তখুনি আমার বুক

 ফেটে ¯্রােতের নদী বেরিয়ে যায়, এই মেয়েটি বরাবর

 কোনো সরোবরে দাঁড়ায় না, যেখানে দাঁড়ায় তার দু’পাশে

 আমার মত আর কোনো মাল্যবান বসত গড়েনি কখনো

 এই মেয়েটি হাইপেশিয়ার মত একলা জীবন কাটাতে গিয়েও

 আমার জীবনে পরম বক্তা হয়ে উঠে ভালোবাসা চেতনার

 যে মেয়েটিকে আমি দেখিনা রোজ

 সেই মেয়েটি আমার স্বপ্নভোজের পাল নাড়ানো এক শাখাচিল

 এই দুয়ের আঁচিলে বেড়ে উঠা আমার প্রণয়বলয় রোজ মেহফিলে

 ঠুমরির সুরে বেদরদি আলাপ ভুলে এক রহম দিলের খোঁজ দেয়

 

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখি এবং দেখছি

 ঘরেতে না এসেও সে মনে আসে যায়

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখিনা দেখছিনা

 সে আমার শরীরের অর্ধযামিনী কেড়ে নেয়, অর্ধদিনটুকুও

 অন্ধকারে আমার চৈতন্যে একই সত্তার এই দুই শাখার লড়াই

 পিছনে পায়ে পায়ে হাঁটা সবুজ সারসের নিস্তব্ধতা নিয়ে আসে

  একদিন জানা গেল এই দুই মেয়ের

 জন্ম হয়েছিল একই দিন এক শরীরে

 অথচ কি অবলীলায় বিভক্ত এক করেছিলো

 আমার জীবনের পহেলা বাতাস পয়লা প্রণয় !!

bangla kobita sms

আমার প্রেম নয় তো ভীরু

 —রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

 আমার প্রেম নয় তো ভীরু,

 নয় তো হীনবল –

 শুধু কি ব্যাকুল হয়ে

 ফেলবে অশ্রুজল

 মন্দমধুর সুখে শোভায়

 প্রেম কে কেন ঘুমে ডোবায়

 তোমার সাথে জাগতে সে চায়

 আনন্দে পাগল

 নাচ’ যখন ভীষণ সাজে

 তীব্র তালের আঘাত বাজে,

 পালায় ত্রাসে পালায় লাজে

 সন্দেহ বিহবল

 সেই প্রচন্ড মনোহরে

 প্রেম যেন মোর বরণ করে,

 ক্ষুদ্র আশার স্বর্গ তাহার

 দিক সে রসাতল

  

 

  মেয়েটিকে

  যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখি

 সে দেবতার ছলে গড়া

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখিনা

 সে মার্ক্সের দ্য ক্যাপিটল দিয়ে গড়া

 দু’জনের মধ্যে মিল এসে গেলে

 চাঁদ-সুরুজ, যুক্তি-বুদ্ধি-মেধা

 চমক দিয়ে উঠে, গমক দেয়

 যে মেয়েটিকে আমি দেখতে পাই

 সে পার্ল এস বাকেরও মা হয়

 যে মেয়েটিকে আমি না দেখি

 সে মাক্সিম গোর্কিরও মা হয়

  সেই মেয়েটিকে আমি নারী সাহসিকা বলি

 সেই মেয়েটিকে আমি হৃদয়ে কোলাহল বলি

 এই মেয়েটির প্রচুর রক্তক্ষরণ হয় সময় সময়

 পুঁজিবাদ দীর্ঘজীবী হবার কৌশল নিয়ে নিেেল

এই মেয়েটিরই আবার মুখ রক্তাভ হয়ে উঠে

 যখন সমাজ থেকে দূষিত রক্তরা ঝরে যায়

 

 যে মেয়েটি আমার পুনর্বিন্যাস ঘটালো পরতে পরতে

 তার দুই রকম রূপ এসে মিলে আমার এক সাঁকোতে

 

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখি

 কথা বলতে গিয়ে হঠাৎই তার লাইন কেটে যায়

 ইথারের আজন্ম ঈর্ষায়, ঠিক তখুনি আমার বুক

 ফেটে ¯্রােতের নদী বেরিয়ে যায়, এই মেয়েটি বরাবর

 কোনো সরোবরে দাঁড়ায় না, যেখানে দাঁড়ায় তার দু’পাশে

 আমার মত আর কোনো মাল্যবান বসত গড়েনি কখনো

 এই মেয়েটি হাইপেশিয়ার মত একলা জীবন কাটাতে গিয়েও

 আমার জীবনে পরম বক্তা হয়ে উঠে ভালোবাসা চেতনার

 যে মেয়েটিকে আমি দেখিনা রোজ

 সেই মেয়েটি আমার স্বপ্নভোজের পাল নাড়ানো এক শাখাচিল

 এই দুয়ের আঁচিলে বেড়ে উঠা আমার প্রণয়বলয় রোজ মেহফিলে

 ঠুমরির সুরে বেদরদি আলাপ ভুলে এক রহম দিলের খোঁজ দেয়

 

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখি এবং দেখছি

 ঘরেতে না এসেও সে মনে আসে যায়

 যে মেয়েটিকে আমি রোজ দেখিনা দেখছিনা

 সে আমার শরীরের অর্ধযামিনী কেড়ে নেয়, অর্ধদিনটুকুও

 অন্ধকারে আমার চৈতন্যে একই সত্তার এই দুই শাখার লড়াই

 পিছনে পায়ে পায়ে হাঁটা সবুজ সারসের নিস্তব্ধতা নিয়ে আসে

  একদিন জানা গেল এই দুই মেয়ের

 জন্ম হয়েছিল একই দিন এক শরীরে

 অথচ কি অবলীলায় বিভক্ত এক করেছিলো

 আমার জীবনের পহেলা বাতাস পয়লা প্রণয় !!

     

আছে আমার হৃদয় আছে ভরে

 —রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

 আছে আমার হৃদয় আছে ভরে,

 এখন তুমি যা খুশি তাই করো

 এমনি যদি বিরাজ’ অন্তরে

 বাহির হতে সকলই মোর হরো

   সব পিপাসার যেথায় অবসান

   সেথায় যদি পূর্ণ করো প্রাণ,

   তাহার পরে মরুপথের মাঝে

   উঠে রৌদ্র উঠুক খরতর

 এই যে খেলা খেলছ কত ছলে

 এই খেলা তো আমি ভালবাসি

 এক দিকেতে ভাসাও আঁখিজলে,

 আরেক দিকে জাগিয়ে তোল’ হাসি

   যখন ভাবি সব খোয়ালাম বুঝি

   গভীর করে পাই তাহারে খুঁজি,

   কোলের থেকে যখন ফেল’ দূরে

   বুকের মাঝে আবার তুলে ধর’

 

     আমার মিলন লাগি তুমি

 —রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

 আমার মিলন লাগি তুমি

 আসছ কবে থেকে

 তোমার চন্দ্র সূর্য তোমায়

 রাখবে কোথায় ঢেকে

           কত কালের সকাল-সাঁঝে

           তোমার চরণধ্বনি বাজে,

           গোপনে দূত গৃহ-মাঝে

                গেছে আমায় ডেকে

 ওগো পথিক, আজকে আমার

 সকল পরাণ ব্যেপে

 থেকে থেকে হরষ যেন

 উঠছে কেঁপে কেঁপে

           যেন সময় এসেছে আজ,

           ফুরালো মোর যা ছিল কাজ –

           বাতাস আসে, হে মহারাজ,

                তোমার গন্ধ মেখে

     

 গানের পারে

 —রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 

  দাঁড়িয়ে আছো তুমি আমার     গানের পারে

 আমার    সুরগুলি পায় চরণ, আমি     পাই নে তোমারে

         বাতাস বহে মরি মরি,     আর বেঁধে রেখো না তরী,

         এসো এসো পার হয়ে মোর     হৃদয়-মাঝারে।।

         তোমার সাথে গানের খেলা     দূরের খেলা যে –

         বেদনাতে বাঁশি বাজায়     সকল বেলা যে

         কবে নিয়ে আমার বাঁশি     বাজাবে গো আপনি আসি

         আনন্দময় নীরব রাতের     নিবিড় আঁধারে?

  

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

 তোমারে পাছে সহজে বুঝি

    তাই কি এত লীলার ছল –

 বাহিরে যবে হাসির ছটা  

  ভিতরে থাকে আঁখির জল

 বুঝি গো আমি, বুঝি গো তব

     ছলনা –

 যে কথা তুমি বলিতে চাও 

   সে কথা তুমি বল না।।

 তোমারে পাছে সহজে ধরি

    কিছুরই তব কিনারা নাই –

 দশের দলে টানি গো পাছে

    কিরূপ তুমি, বিমুখ তাই

 বুঝি গো আমি, বুঝি গো তব

     ছলনা –

 যে পথে তুমি চলিতে চাও 

   সে পথে তুমি চল না।।

 সবার চেয়ে অধিক চাহ, 

   তাই কি তুমি ফিরিয়া যাও –

 হেলার ভরে খেলার মতো 

   ভিক্ষাঝুলি ভাসায়ে দাও?

 বুঝেছি আমি, বুজেছি তব

    ছলনা –

 সবার যাহে তৃপ্তি হল 

   তোমার তাহে হল না।।

Finally, i think from these kobita collection, you will get new idea to expose your in front of your girlfriend. Also, you can read Bengali love poems collection from our website. Stay with us, we are adding new bangla kobita sms everyday in our website.

Bangla Love sms